এন্টিবায়োটিক ঔষধ খাওয়ার পূর্বে যা অবশ্যই জানা প্রয়োজন – Antibiotics: Uses and Side Effects

Antibiotics -Uses-and-Side-Effects
Antibiotics: Uses and Side Effects

আজকে আমরা মেডিসিন নিয়ে কথা বলবো। আমাদের মেডিসিন খেতে হয় আমরা যখন অসুস্থ হয় ডাক্তার প্রেস্ক্রিব করে। মেডিসিন সম্পর্কে কিছু ধারণা থাকা দরকার।
সবচেয়ে প্রথম কথা হলো আমরা ডাক্তার এর পরামর্শ ছাড়া মেডিসিন কখনো খাবো না।
দ্বিতীয় কথা হলো পৃথিবীতে সাইড ইফেক্ট নাই এমন কোন ওষুধ নাই। হোমিও , উনিনি , আয়ুর্বেদিক , হারবাল ,এলোপ্যাথিক সমস্ত ওষুধে সাইড ইফেক্ট আসে , তবে ডাক্তার কি কিরে আপনার রোগ আপনার ওজন ,আপনার বয়স এসব দেখে ডাক্তার একটি সুইটুবল ডোজ ঠিক করে দেয়। যে ডোজ তা আপনার জন্য সহনশীল।
এখন এন্টিবায়োটিক নিয়ে কিছু কথা বলি , এন্টিবায়োটিক আর কাজ হচ্ছে ব্যাক্টেরিয়া কে মারে ফেলা , ভাইরাস কে মারা না। কিছু কিছু রোগ ভাইরাস এর দ্বারা হয়। এন্টিবায়োটিক কোন ব্যাক্টেরিয়ার জন্য কতটুকো এন্টিবায়োটিক লাগবে কত মাত্রায় লাগবে শুধুমাত্র একজন রেজিস্টার ফিজিসিয়ান ঠিক করবে। ডাক্তার যে এন্টিবায়োটিক দেয় ওই এন্টিবায়োটিক খেতে হবে। কোনো ভাবে ওষুধ আর দোকান দাঁড় এর কাছ থেকে একটা দুইটা এন্টিবায়োটিক খেয়ে বন্ধ করা যাবে না। এন্টিবায়োটিক যখন কিনতে হবে ফুল কোর্স কিনতে হবে। কারণ হচ্ছে আপনি যদি এন্টিবায়োটিক কোর্স কমপ্লিট না করেন তাহলে ওই এন্টিবায়োটিক পরবর্তীতে এই ব্যাকটেরিয়া আর ক্ষেত্রে আর কাজ করবে না, ব্যাকটেরিয়াকে মারতে পারবে না। ধরি বাজারের সব এন্টিবায়োটিক এইভাবে অপব্যাবহার করসেন সব রেজিস্টেন্স হয়ে গেসে, তাহলে সামান্য টাইফয়েড এ মারা যাবেন। সামান্য ইনফেক্শন এ মারা যাবেন , সামান্য নুমানিয়ায় মারা যাবেন। মোটকথা হলো ভয়ঙ্কর একটি অবস্থা।
তাই আমরা এন্টিবায়োটিক এর অপব্যাবহার করবো না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here